মূল Sex Tips (সেক্স টিপস) যৌন শিক্ষা পর্নগ্রাফি আসক্তির নেতিবাচক প্রভাবগুলোর ব্যাপারে জানেন কি?

পর্নগ্রাফি আসক্তির নেতিবাচক প্রভাবগুলোর ব্যাপারে জানেন কি?

‘আমেরিকান সাইকোলজিক্যাল এসোসিয়েশন’ জানাচ্ছে, পর্নগ্রাফি দেখার ক্ষেত্রে নারীদের সংখ্যা ৩০ শতাংশ। পুরুষদের ক্ষেত্রে যেটা ৫০ শতাংশ। যদিও অনেক দেশে পর্ন সিনেমা যৌন শিক্ষার বিষয়বস্তু হিসেবে ধরা হয়, তবে বেশীরভাগ ক্ষেত্রেই পর্ন সিনেমা দেখা হয়ে থাকে চটুল যৌন আকর্ষণের জন্য। আকর্ষণের বিষয়বস্তু যখন একজন মানুষের জীবনে আসক্তিতে পরিণত হয় তখনই ভয়াবহ সমস্যা দেখা দিতে শুরু করবে আর সেটাই স্বাভাবিক।
কীভাবে বুঝবেন আপনার পর্ন আসক্তি রয়েছে?
একজন ব্যক্তি পর্ন সিনেমার প্রতি আসক্ত কিনা, সেটা জানা ও বোঝা যাবে বেশ কিছু লক্ষণ থেকে।
– তারা নিজেদের পর্ন সিনেমা দেখার বিষয়টি লুকিয়ে রাখেন।
– তারা নিজের প্রতিদিনের জীবনযাপন, অভ্যাস ও সময়সূচী পর্ন সিনেমা দেখার জন্য ভিন্নভাবে বদলে নেন।
– যত জরুরি কিংবা গুরুত্বপূর্ণ কাজই থাকুক না কেন, যেকোন অবস্থাতেই তাদের নির্দিষ্ট সময়ের মাঝে পর্ন সিনেমা অবশ্যই দেখতে হবে।
– পর্ন সিনেমা দেখার শুরুর সময় অনেক বেশী উত্তেজনা কাজ করলেও, শেষদিকে অনেক বেশী অনুশোচনা বোধ দেখা দেবে।
– নিজের মাঝে অনেক একাকীত্ব বোধ করবেন তারা।
মূলত এই সকল লক্ষণ দেখা দেওয়া ও চিহ্নিতকরনের মাধ্যমেই একজন মানুষের পর্নগ্রাফি আসক্তি ধরা পড়ে। অতিরিক্ত পর্নগ্রাফি আসক্তি ফলে ব্যক্তি জীবন তো বটেই, শারীরিক ও মানসিকভাবে কতোটা বিপর্যয়ের মুখোমুখি হতে হয় একজন সেটা তুলে ধরা হলো।
১/ বিষণ্ণতায় ভোগা
পর্নগ্রাফি আসক্তির ক্ষেত্রে সবচাইতে বড় এবং ঝুঁকিপূর্ণ সমস্যা, যেটার জন্য খুব দ্রুত মেডিক্যাল চিকিৎসার প্রয়োজ

পর্নগ্রাফি আসক্তির নেতিবাচক প্রভাবগুলোর ব্যাপারে জানেন কি?

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here