মূল ট্রাভেল এই ঈদে ভ্রমণ করুন ভিন্ন আমেজের কেরালায় (পর্ব-১)

এই ঈদে ভ্রমণ করুন ভিন্ন আমেজের কেরালায় (পর্ব-১)

ঈদ নিয়ে আমাদের পরিকল্পনার শেষ নেই। এই বছর আবার ঈদের ছুটিও লম্বা। এমন ছুটি পেয়ে দূরে কোথাও বেড়াতে না গেলে কি হয়? কিন্তু যেখানেই যেতে চান না কেন ভিড়ের ভয়! ঈদের সময় সবাই যেন ছুটছে, শুধু ছুটছে। বেড়াতে যাওয়া যেন এক প্রকার স্বেচ্ছায় নিজেকে ভোগান্তিতে ফেলা! তবে ভ্রমণের ক্ষেত্রে একটু যদি চিন্তা করে ঠিক করেন আপনার গন্তব্য তাহলে ভিড় এড়াতে পারবেন সহজেই।

চলুন বেড়িয়ে আসি নিরিবিলি স্বর্গের অপর নাম কেরালা থেকে। জেনে নিই, কী কী করবেন এখানে।

হাতির সাথে গোসল
আপনি কি কখনো ভেবেছেন হাতির সাথে গোসলের কথা? কোদানাদ হাতি আশ্রয়স্থল কেরালার একটি জনপ্রিয় ভ্রমণ আকর্ষণ। কোচি থেকে ৪২ কিলোমিটার দূরত্বে এর অবস্থান। অবশ্যই এই মজার জায়গাটিতে ভ্রমণ করুন এবং মজার মজার সব অভিজ্ঞতা নিন। যেমন- গোসল করতে পারেন হাতির সাথে, খাওয়াতে পারেন, বাচ্চা হাতিদের সাথে খেলতেও পারেন। খরচ জনপ্রতি ৩৫০- ১৫০০। নির্ভর করে আপনি কতটা সময় থাকছেন আর কি কি করছেন তার উপর!

আলেপ্পেতে হাউজবোট
কেরালায় পর্যটকরা যেসব জায়গায় ভ্রমণ করেন তার মধ্যে সবচেয়ে সুন্দর জায়গা আলেপ্পে। আর আলেপ্পের হাউজবোট তো পরিবার নিয়ে ভ্রমণের জন্য সবচেয়ে উপযুক্ত। ভাবুন তো একবার চারিদিকে ঘন সবুজ, শান্তিময় সে সবুজের দিকে তাকিয়ে আছেন আপনি আর আপনার সামনে পরিবেশিত হল তরতাজা কেরালার চমৎকার স্বাদের খাবার। সৌন্দর্য্যের মাঝে এক রাশ রিল্যাক্স সময় নিতে আসুন এখানে। খরচ ৬৫০০ থেকে ১১৫০০ এর মধ্যে। অগ্রীম রিজার্ভ করে রাখা ভাল।

মানুরে দেখুন নিলাকুরিঞ্জি ফুল ফোঁটা
এরাভিকুলাম ন্যাশনাল পার্ক বিখ্যাত নিলাকুরিঞ্জির জন্যই। তবে ১২ বছরে একবারই ফোটে এই ফুল আর সেই দৃশ্য সারা জীবন মনে রাখার মতই অতুলনীয়। এখানে আরও দেখতে পাবেন নিগিরি থার, এক ধরণের পাহাড়ি ছাগল। এর দেখা পাবেন পাহাড়ে পাহাড়ে ট্রেকিং করার সময়। এই পার্কে প্রবেশমূল্য ৫৫ রূপি (বড়দের জন্য) এবং পার্কটি ফেব্রুয়ারি এবং মার্চে বন্ধ থাকে।

গ্রামে কাটান একটি দিন
কুমবালাগনি একটি অসাধারণ গ্রাম। এখানে গেলে আপনার ইচ্ছে করবে শহুরে জীবন ছেড়ে গ্রাম্য সরলতায় মিশে যেতে। স্থানীয় শস্য ক্ষেত দেখা, মেনগ্রোভ বনে ঘুরে বেড়ানো, মাছ ধরা, কাকড়া চাষাবাদ দেখা সহ আরও অনেক কিছু আছে করার এই গ্রামে। সাথে অভূতপূর্ব সৌন্দর্য্য উপভোগ করার সুযোগ তো আছেই। এখানকার অধিবাসিদের ঘরে ভাড়া দিয়ে থাকতে পারবেন আপনি। এরনাকুলাম রেলস্টেশন থেকে গ্রামটি ১৪ কিলোমিটার দূরত্বে অবস্থান করছে।

ভেলি ট্যুরিস্ট ভিলেজের খাবার
কেরালার যত দিকেই আপনি ভ্রমণ করুন না কেন ভেলি লেকে ভ্রমণ আর এখানকার ভাসমান রেস্টুরেন্টে খাবার গ্রহণের অভিজ্ঞতার সাথে তুলনা হবে না কোনটিরই। চমৎকার লেকটি ঘুরে বেড়াতে পারবেন প্যাডল নৌকায় চড়ে, সাথে দেখতে পাবেন ভাসমান ব্রীজ যা গ্রামটিকে যুক্ত করেছে বিচের সাথে। ভেলি ট্যুরিস্ট গ্রামটি থিরুভানান্থপুরাম থেকে ৮ কিলোমিটার দূরত্বে অবস্থিত।

এই ঈদে ভ্রমণ করুন ভিন্ন আমেজের কেরালায় (পর্ব-১)

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here